IOM স্টুডেন্টদের নিয়ম ও কানুন

Islamic Online Madrasah(IOM) একটি দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানের শৃঙ্খলার স্বার্থে  ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য কিছু নিয়ম শৃঙ্খলা প্রদত্ত হল। এই নিয়মবহির্ভূত কাজগুলো করাটা কোনভাবেই কাম্য নয়। সকল ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতি এই নিয়মকানুন গুলো মেনে চলার অনুরোধ করা হল।

 

লাইভ ক্লাশ সংক্রান্তঃ

সকল ভাই-বোনদের জন্যঃ

১. কোনক্রমেই কখনই কারও ভিডিও অন করা যাবে না। 
২. অপ্রয়োজনে মাইক্রোফোন অন করা থেকে বিরত থাকতে হবে।  
৩. কোন বিষয়ে উস্তাদের সাথে মতের মিল না হলে শ্রদ্ধার সাথে তাঁকে সেটা জানাতে হবে। উস্তাদের সাথে এমন কিছু করা যাবে না যাতে করে উস্তাদের সাথে বেয়াদবি হয়ে যায়। উস্তাদকে প্রশ্ন করার সময় যথেষ্ট শ্রদ্ধাশীল হতে হবে। 
৪.জুম অ্যাপের চ্যাটে অতিরিক্ত কিছু লিখা থেকে বিরত থাকতে হবে। 
৫.নির্দিষ্ট ক্লাসে নির্দিষ্ট বিষয়ের বাইরের কোন বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করা থেকে যথাসম্ভব বিরত থাকতে হবে। আক্বিদার ক্লাসে আক্বিদা নিয়েই প্রশ্ন করতে হবে। ফিকহ ক্লাসে ফিকহ নিয়েই প্রশ্ন করতে হবে। খুব বেশী জরুরী হলে ক্লাসের বিষয় পড়ানোর পর ঐ বিষয়ের প্রশ্ন শেষ হয়ে গেলে উস্তাদের অনুমতি নিয়ে প্রশ্ন করা যেতে পারে। আর যেকোন ফতোয়ার জন্য ifatwa.info এই সাইটে পোষ্ট করলে ইনশাআল্লাহ ২৪-৪৮ ঘন্টার মধ্যে উত্তর পাওয়া যাবে। 
৬.শেষের ১৫ মিনিট বিষয়ভিত্তিক প্রশ্ন করার চেষ্টা করতে হবে। 
৭.উস্তাদ যখন কিছু পড়াবেন বা বলবেন হঠাৎ করে উস্তাদকে বাধা দিয়ে অপ্রাসঙ্গিক কিছু বলে ফেলে উস্তাদের মনোযোগ নষ্ট করা থেকে বিরত থাকার জন্য অনুরোধ করা গেল।  যেকোন বিষয়ে আগে উস্তাদকে শেষ করতে দিয়ে তারপর আপনার বিষয় বলা যেতে পারে। 
৮.কাওকেই আক্রমণ করে কোন কিছু বলা যাবে না। 
৯.জুম অ্যাপে প্রবেশ করার সময় নিজের নাম দেয়া যাবে না। অবশ্যই রোল নম্বর দিতে হবে। রোল নম্বর ছাড়া উপস্থিতি গণ্য করা হবে না। 
১০. যেকোনো সাজেশনের জন্যঃ https://iomedu.org/suggestion/ 
এবং অভিযোগের জন্যঃ https://iomedu.org/complain/ এখানে জানানোর জন্য অনুরোধ করা গেল।

অভিযোগ জানানোর পর অভিযোগের স্ট্যাটাস জানার জন্য: https://iomedu.org/complaint-status/

সকল ভাইদের জন্যঃ

 

ভাইদের জন্যঃ
১. প্রাইভেটলি কোন বোনকে কোনভাবেই মেসেজ দেয়া যাবে না।
২. মাইক্রোফোনে কথা বলার সময় খেয়াল রাখতে হবে আশে পাশে যেন অবাঞ্চিত কোন আওয়াজ না হয়।
৩.যেহেতু বোনরা কোন ক্লাসেই কথা বলতে পারেন না, তাই ভাইদের খেয়াল রাখতে হবে যেন বোনরা বিরক্ত না হয় বা তাদের কোন সমস্যা না হয় ভাইদের জন্য।
৪. তাজবিদ ক্লাসে, দাওয়াহ ক্লাসে যেখানে উস্তাদের সাথে ভাইদের উচ্চারন করতে হয় চেষ্টা করতে হবে ২/৩ জন যাদের মাইক্রোফোন আছে এবং পাশে কোন নয়েজ নাই উনারাই শুধু মাইক্রোফোন অন রেখে বাকিরা মিউট থেকে উচ্চারন করার।
৪.বোনরা যেহেতু কোন প্রশ্ন সরাসরি করতে পারে না সেক্ষেত্রে অনেক সময় উস্তাদগনও প্রশ্ন হয়তো খেয়াল করতে পারেন না। ভাইরা এই প্রশ্নগুলো প্রশ্নোত্তর পর্বে উস্তাদকে বললে ভাল হয়।

 

সকল বোনদের জন্যঃ

বোনদের জন্যঃ

১.কম্বাইনড ক্লাসে ভিডিও আর মাইক্রোফোন কোন অবস্থাতেই অন করা যাবে না।শুধুমাত্র বোনদের যে স্পেশাল ক্লাসগুলো হয় সেখানে মাইক্রোফোনে কথা বলবে। 
২.ভাইদেরকে প্রাইভেট কোন মেসেজ দেয়া যাবে না। 
৩. অনেক বোন ভুলবশত মাইক্রোফোন অন করে ফেলেন। অনেক ক্ষেত্রে দেখা গেছে অনেকের ভিডিও অন থাকে। এতে করে সব স্টুডেন্ট এবং শিক্ষকও বিব্রত হন। এই বিষয়গুলো বিশেষভাবে খেয়াল রাখতে হবে।

এজন্য কয়েকটা সতর্কতা অবলম্বন করা যেতে পারেঃ

ক. ক্যমেরার সামনে একটা কাগজ স্কসটেপ অথবা কিছু একটা দিয়ে ঢেকে রাখতে পারেন। যাতে করে ভুলে ভিডিও অন হয়ে গেলেও ভিডিও দেখা না যায়।

খ. কিছু এপস আছে যেগুলো ব্যবহার করলে স্ক্রিন ফিক্সড হয়ে যায়। 
Touch Lock: https://play.google.com/store/apps/details?id=com.kidscrape.king
এই এপ ইন্সটল থাকলে যাস্ট উপর থেকে নিচে টান দিয়ে স্ক্রিন লক করে দিবেন। এবার যতই স্ক্রিন টাচ করা হোক কোন কাজ করবে না। শুধুমাত্র চিন্হিত যায়গায ২/৪/৫ বার ট্যাপ করলে স্ক্রিন আনলক হবে। ক্লাশ করতেও কোন সমস্যা হবে না।

 

সিস্টার স্পেশাল ক্লাশ ও সিস্টার ডিসকাশন রুমের কিছু নিয়মাবলি

জয়েন করার শর্তাবলী:

১. এই ক্লাশগুলোতে শুধুমাত্র আপুরাই জয়েন করবেন।

২. ক্লাশের লিঙ্ক এবং আইডি অন্য লিঙ্ক থেকে আলাদা। এই লিঙ্কগুলো বা আইডি সর্বোচ্চ প্রাইভেসী বজায় রাখার চেষ্টা করতে হবে। এই লিঙ্কগুলো কারও সাথে শেয়ার করা যাবে না।

৩. এই ক্লাশগুলোতে বোনরাও তাদের প্রশ্ন সরাসরি ভয়েসের মাধ্যমে করতে পারবেন।

৪. কোনো ক্রমেই কারও ভিডিও অন করা যাবে না। কেননা ভুল ক্রমে কারও হাজবেন্ড অথবা মাহরাম চলে আসলেও যাতে পর্দার সমস্যা না হয়।

৪. ক্লাশের সময় যাতে কম্পিউটারের সামনে কোন পুরুষ মানুষ না বসে এটা সম্পূর্ন স্টিক্টলি মেইনটেইন করতে হবে।

৫. আপনার মাহরাম পুরুষও যাতে কেউ ক্লাশের সামনে না বসে। কারন আপনার মাহরাম হলেও যিনি ক্লাশ নিচ্ছেন তার জন্য নন মাহরাম।

আর উপরোক্ত বিষয়গুলো নিজ জিম্মাদারীতে আল্লাহর জন্য স্ট্রিকলি ফলো করার জন্য অনুরোধ করা গেল।

ডিসকাশন রুম এর নিয়মাবলি:

১. প্রতিদিনি দুইটা/তিনটা ক্লাশের আলোচনা হবে।

২. প্রতিটা সাবজেক্টের জন্য স্টুডেন্টদের মধ্যে থেকেই একজনকে ওস্তাদ হিসেবে নির্বাচন করে ক্লাশ শুরু করতে হবে। যদি ২ টা সাবজেক্টের আলোচনা হয় তবে দুইজন বোন ওস্তাদ হিসেবে থেকে বাকিদের সাহায্য করবেন। সবাই সমানভাবে ক্লাশে অংশগ্রহণ করবেন তবে ওস্তাদদের দায়িত্ব ক্লাশের টাইম, টপিকস ইত্যাদি মেইনটেইন করা। যারা ওস্তাদ হিসেবে থাকবেন তাদের জিম্মাদারী ক্লাশে যাতে সবাই উপকৃত হয়, শিখতে পারে এবং সময়টা কাজে লাগে এ বিষয়ে আল্লাহর জন্যই খেয়াল রাখা।

তাজবীদের ক্ষেত্রে যারা পরীক্ষাগুলোতে সর্বোচ্চ মার্কস পেয়েছেন তারা উপস্থিত থাকলেই তারাই ওস্থাদ হিসেবে থাকার চেষ্টা করা।

৩. প্রতিদিনের শুরুতে সবার ঈমানী খোজ-খবর নেওয়ার মাধ্যমে ক্লাশ শুরু হবে। যেমন কার কার তাহাজ্জুদ হচ্ছে। কারও নামাজ ছুটছে কিনা। কার কয় পারা কোরআন শরীফ পড়া হল ইত্যাদি।

৪. প্রতিদিন শেষে পরবর্তী দিন কোন কোন ক্লাশ হবে ঐ ক্লাশে কে কে ওস্তাদ হিসেবে থাকবেন এটা সবার মতামতের মাধ্যমে ঠিক করা। প্রতিদিন ওস্তাদ পরিবর্তন হলেই ভাল। কোন একজনের উপর চাপিয়ে না দেওয়া।

 

৫. আলোচনার ক্ষেত্রে কোন মাযহাব বা মানহাজ নিয়ে আলোচনা করা যাবে না। সব মাযহাবই কিংবা মানহাজই আলহামদুলিল্লাহ ঠিক আছে। তবে আমাদের স্টুডেন্টদের ৯৫% যেহেতু হানাফী মাযহাবের তাই নামাজ বা অন্য বিষয় নিয়ে আলোচনা হলে হানাফী ফিকের নিয়মটা আলোচনা করতে হবে এবং বলে দিতে হবে অন্যান্য নিয়ম যারা ফলো করছেন তাদেরটাও ঠিক আছে। কারন IOM এর উদ্দেশ্য কোন মানহায বা মাজহাবকে প্রতিষ্ঠিত করা নয় বরং সবাইকে দায়ী এবং ঈমানওয়ালা বানান।

ফেসবুক গ্রুপ এবং গ্রুপ চ্যাটিং সংক্রান্ত:

ফেসবুক গ্রুপে পোষ্ট এবং চ্যাটিং সংক্রান্ত:

১. রাজনৈতিক পোষ্টঃ 
গ্রুপে বা চ্যাটিং এ কখনই রাজনৈতিক কোন পোষ্ট দেওয়া যাবে না। ভিন্ন ভিন্ন স্টডেন্ট বিভিন্ন রাজনৈতিক মতাদর্শের থাকবেন এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু সবাইকে আমার মতাদর্শের সাথে একমত করার কোন প্রয়োজন নেই।
২. 
ধর্মীয় বিতর্কিত পোষ্টঃ
 
ধর্মীয় বিতর্ক সৃষ্টি করতে পারতে পারে এমন কোন বিতর্কিত পোষ্ট দেওয়া বা শেয়ার করা যাবে না। শুধু উৎসাহ মূলক পোষ্ট দেওয়া যেতে পারে।
৩. মাযহাবের বিতর্কঃ 
IOM সব সময় সকল মাযহাব বা মানহাজের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। মাযহাব নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি করে এমন কোন পোষ্ট দেওয়া বা আলোচনা করা যাবে না। পক্ষেও না বিপক্ষে না।  IOM বিশ্বাস করে সকল মাযহাব মানহায সবগুলোই সঠিক। অন্যদিকে মাযহাবগত পার্থক্য অধিকাংশ ক্ষেত্রেই শুধুমাত্র নফলের মধ্যে সীমাবদ্ধ। বাকি ফরজ নিয়ে কারও কোন মতপার্থক্য নেই। তাই নফল নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করার কোন অবকাশ নেই। 
৪. 
বিদ্বেষ পোষনঃ
ব্যাক্তিগতভাবে কোন একজন আলেম অথবা স্কলারকে আমার ভাল নাও লাগতে পারে। কিন্তু এখানে কাউকে কটাক্ষ করে পোষ্ট দেওয়া বা পোষ্ট শেয়ার করা সম্পূর্ন নিষিদ্ধ।
৫. দান সংগ্রহঃ
কোন প্রতিষ্ঠান বা ব্যাক্তির জন্য অর্থসংগ্রহের জন্য কোন ধরনের পোষ্ট বা চ্যাটিং দিতে হলে অবশ্যই এডমিনের অনুমতি সাপেক্ষে দিতে পারবে।  এডমিনের অনুমতি ব্যাতিত কোন ধরনের দান সংগ্রহ সম্পূর্ন নিষিদ্ধ।  

চ্যাটিং সংক্রান্ত কিছু বিশেষ সতর্কতাঃ

১. সময় নষ্ট করাঃ
অযতা চ্যাটিং এর মাধ্যমে সময় নষ্ট না করার জন্য অনুরোধ করা গেল। শুধুমাত্র মাদ্রাসা পড়াশুনা সংক্রান্ত অথবা প্রয়োজনীয় বিষয় নিয়েই আলোচনা করা যেতে পারে। মনে রাখা দরকার চ্যাটিং মাদ্রাসা পড়াশোনার কোন অংশ নয়। বরং যেকোন অফিশিয়াল নোটিশ গ্রুপে পোষ্ট আকাদের দেওয়া হবে। 
২. চ্যাটিংয়ের সময়ঃ
চ্যাটিং সর্বোচ্চ সময় সকাল ১০ টা থেকে রাত ১১ টার মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখা। কেননা রাত ১২ পর চ্যাটিংয়ের কারনে কারও তাহাজ্জুদ মিস কিংবা ফজর নষ্ট হয়ে গেলে এটা গুনাহের কারনে পরিনত হবে। 
৩. পরিবারকে সময় দেওয়াঃ  
অযথা চ্যাটিং এ সময় নষ্ট না করে বেশি সময় পরিবার ও বাচ্চাদেরকে দেওয়ার অনুরোধ করা গেল। কেননা ক্লাশের সময়গুলোই মাদ্রাসার সময়। ক্লাশ বাদে অন্য চ্যাটিংয়ের সময়গুলো মাদ্রাসার সময় নয়।  
৪. চ্যাট নোটিফিকেশন অফ রাখাঃ  
অন্যদের চ্যাটিং এর ফলে সারাদিন নোটিফেকশন আশা বিরক্তের কারন হওয়াটাই স্বাভাবিক। তাই নিম্নোক্ত নিয়ম অনুসরন করে চ্যাট নোটিফিকেশন অফ করে রাখার জন্য অনুরোধ করা গেল।  https://youtu.be/XYFcP_gv_ao
৫. ক্লাশ চলাকালীন চ্যাটিং অফ রাখাঃ   
ক্লাশ চলাকালীন সময়ে চ্যাটিং না করার জন্য অনুরোধ করা গেল। 

 

 

পেমেন্ট সংক্রান্ত:

 

 

সেমিস্টার অথবা মাসিক ফি প্রদান:

যাদেরকে আল্লাহ আর্থিকভাবে সচ্ছলতা দান করেছেন তাদের কাজে অনুরোধ করা যাচ্ছে পুরো সেমিস্টারের ফি অর্থাৎ ৬ মাসের ফি ৩০৬০ টাকা একবারে পেমেন্টে করার জন্য। কেননা প্রতি মাসে এই হিসাব রাখা খুবই সময় সাপেক্ষ বেপার। তবে যাদের আর্থিক সমস্যা তারাই কেবল মাসিক বা ২/৩ মাসের ফি একসাথে প্রদান করতে পারবেন।

মাসিক ফি প্রদানের শেষ তারিখ পরের মাসে ১০ তারিখ। ১০ তারিখের ভিতর সেমিস্টার ফি প্রদান না করলে ক্যাম্পাস একাউন্ট বন্ধ হয়ে যাবে। ১০ তারিখ পার হলে ১০০ টাকা জরিমানাসহ প্রদান করতে হবে।

ফি প্রদানের নিয়ম:

ফি প্রদানের ক্ষেত্রে পেমেন্ট গেটওয়ে মেইন অপশন।

Payment Gateway এর কোন অপশন আপনার কাছে না থাকলে সে ক্ষেত্রে Bank/Bkash/Rocket/Nagad এর মাধ্যমেও দিতে পারবেন।

সেমিস্টার ফি যে যে মাধ্যমেই পেমেন্ট করবেন পেমেন্টের পর অবশ্যই ডিপোজিট স্লিপ ফর্ম পূরন করা লাগবে। পেমেন্টে ফর্ম পূরন না করলে পেমেন্ট আপডেট হবে না।

ফিস পেমেন্টের ডাইরেক্ট লিঙ্ক: https://iomedu.org/fees/

ফি প্রদান আপডেট:

আপনার Payment টি Confirm হয়েছে কি না তা জানার জন্য ৪৮ ঘন্টা পর নিম্ন লিখিত লিংক এ চেক করুন: https://iomedu.org/payment-status/
আপনার বিভিন্ন মাসের ঘরে সবুজ চিহ্নিত থাকলে পেমেন্ট জমা হয়েছে। লাল হয়ে থাকলে পেমেন্ট আপডেট হয়নি।

ফিস স্ট্যাটাস চেক করা, রেজাল্ট দেখা, উপস্থিতি নম্বর:

আপনার জমা দেওয়া ফি আপডেট হয়েছে কিনা কিংবা রেজাল্ট দেখা কিংবা গতকালের ক্লাশের উপস্থিতি কাউন্ট হয়েছে কিনা দেখার জন্য:

https://iomedu.org/batch-activity/

ওয়েবসাইট থেকে যাওয়ার জন্য: iomedu.org > Academic> Batch Activity

আপনার ব্যাচে ক্লিক করে ডিটেইলস দেখতে পারবেন।
আর পাসওয়ার্ড 1901 ব্যাচের জন্য: 1901

এবং 1902 ব্যাচের জন্য: 1902

প্রবাসী বাংলাদেশীদের সেমিস্টার ফি প্রদান:

সেমিস্টার ফি প্রদানের ক্ষেত্রে প্রবাসী ভাই/বোনদের জন্য আলিম কোর্স অথবা যেকোন একটা সিঙ্গেল সাবজেক্টের জন্য মাসিক ফি দেশি স্টুডেন্টের ডাবল। তবে ভর্তি ফি সবার একই।

কারও যদি সমস্যা হয় সেক্ষেত্রে স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে হবে। প্রবাসীরা বাংলাদেশি ফি জমা দিলে সেমিস্টার ফি কাউন্ট হবে না।

ফতোয়া সংক্রান্ত:

 

বিভিন্ন বিষয়ে ফতোয়া বা মাসআলা প্রশ্নের উত্তর জানার জন্য IOM এর রয়েছে একাধিক সদস্য বিশিষ্ট একটা ইফতা বোর্ড।

ক্লাশে শুধু ক্লাশ রিলেডেট প্রশ্ন ছাড়া যেকোন কোন ধরনের ফতোয়া জিজ্ঞাসা করা নিষেধ।

তাই যেকোন ফতোয়ার জন্য এই ওয়েবসাইটে প্রশ্ন করতে পারবেন : https://ifatwa.info/

আশা করি খুব দ্রুত ফতোগুলো উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করা হবে।

 

পরীক্ষা সংক্রান্ত:

:ক্লাশ টেস্ট অন্যান্য সাবজেক্টের ক্ষেত্রে এমসিকিউ, তাজবীদের ক্ষেত্রে ভাইবা। 

সেমিস্টার ফাইনালে প্রতিটা সাবজেক্টে ক্ষেত্রে ভাইবা এবং এমসিকিউ দুইটাই হবে। ভাইবায় ৫০ মার্কস এবং এমসিকিউ ৫০ মার্কস । মোট ১০০ মার্কস।
পরীক্ষা বা অন্য যেকোন সমস্যার সমাধান:
পরীক্ষা বা অন্য যেকোন বিষয়ে সংশোধনের জন্য :

https://iomedu.org/complain/

যেকোন ধরনের সাজেশনের জন্য:
https://iomedu.org/suggestion/

 

IOM ফ্রি Matrimony হেল্প:

IOM ফ্রি Matrimony হেল্প:

বিয়ে করা নবীর বড় সুন্নতের ভিতর একটি। ইসলামের অন্যতম রীতি ও বিধান। যা মানুষকে যিনা থেকে রক্ষা করে। হাদিস শরীফে রাসূলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, ‘যে ব্যক্তি বিয়ে করল তার অর্ধেক দ্বীন-ঈমান পূর্ণ হয়ে গেল, সে যেন বাকি অর্ধেকের বিষয়ে আল্লাহকে ভয় করে চলে’।-মিশকাত শরীফ…

আমাদের স্টুডেন্টদের ভিতরে অনেক দ্বীনদার পাত্র/পাত্রী আছেন। তাই আপনার সিভি আমাদের ওয়েবসাইটে দিলে আমাদের প্রতিনিধিরা যাচাই বাছাই করে বিবাহের জন্য হেল্প করবেন ইনশআল্লাহ।

এর কাজগুলোতে যারা সাহায্য করবেন শুধু আল্লাহর জন্যই। কোন বিনিময় ছাড়াই।

আপনার প্রদত্ত সব তথ্য ইনশাআল্লাহ শুধুমাত্র বিবাহ সংক্রান্ত কাজে সম্পূর্ন গোপনীয়তা রক্ষা করেই ব্যবহার করা হবে….

https://iomedu.org/free-matrimony-help/

 

Content Protection by DMCA.com
0